প্রিয় ব্যাটগুলোর কান্না ভালো লাগছে না মুশফিকের

প্রকাশিত: ১২:১৭ অপরাহ্ন, মে ৩, ২০২০

কী ফর্মেই না ছিলেন মুশফিকুর রহিম! ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি, ওয়ানডে সিরিজে দুই ম্যাচে এক ফিফটি, এরপর আবার ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে প্রথম ম্যাচেই চাপের মুখে ১২৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। ব্যাটিংয়ে নামলেই মনে হতো বড় ইনিংস খেলতেই নেমেছেন মুশফিক।

ঠিক এমন সময় সব গুবলেট করে দিল করোনাভাইরাস। প্রাণ বাঁচাতে থাকতে হচ্ছে ঘরে। সংক্রমণ এড়াতে থেমে গেছে গোটা বিশ্ব। মাঠে নেই খেলা। এদিকে মুশফিকের অনুশীলনপ্রীতি তো সবার জানাই। বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে অনুশীলনে মুশফিকের চেয়ে বেশি সময় কাটান না আর কেউ।

গত বিপিএলে খুলনা টাইগার্সের কোচ জেমস ফস্টার মুশফিককে বিশ্বের অন্যতম কঠোর পরিশ্রমী ক্রিকেটারদের একজন আখ্যা দেন। কিন্তু সেই মুশফিককে প্রিয় ‘এসএস’ ব্যাটগুলো এখন তুলে রাখতে হচ্ছে ঘরে। করোনায় খেলা বন্ধ, অনুশীলন নেই, তাই বেকার বসে আছে ব্যাটগুলো।

কাল রাতে তামিম ইকবালের সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে মুশফিক বলছিলেন এ নিয়ে, ‘সত্যি কথা বলতে, এখন বিরক্ত লাগছে কিছুটা। খারাপ লাগছে। কারণ ব্যাট মিস করছি অনেক। বাসায় ব্যাট আছে, প্রতিদিন ব্যাট ধরি। এসএসের আমার নতুন ব্যাটগুলো, খুব কান্না করছে। কবে যে ব্যাটিং করব।’

বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকেই মুশফিককে খুব কাছ থেকে দেখেছেন তামিম। তাঁর কঠোর পরিশ্রম ও নিবেদন অবাক করে তামিমকে, ‘আমাদের মধ্যে সবচেয়ে কঠোর পরিশ্রমী ক্রিকেটার মুশফিক। মাঝেমধ্যে অবাক হয়ে যাই একটা মানুষ এত কষ্ট কীভাবে করে। আমি তো কোনো দিন পারব না। খেলার জন্য যতটুক দরকার, এর বেশি করতে পারি না।’

দুই তারকা ক্রিকেটারের আড্ডায় মুশফিককে যেকোনো তরুণ ক্রিকেটারের অনুপ্রেরণা বলেছেন তামিম। বিশ্বের বড় বড় তারকা ক্রিকেটারের দিকে না তাকিয়ে হাতের কাছের উদাহরণ মুশফিককে অনুসরণ করতে বলছেন তামিম, ‘আমি সব সময় একটা কথা বলি, সবাই বিরাট কোহলি ও আরও বড় বড় ক্রিকেটারের উদাহরণ দেয়। কিন্তু আমাদের দেশেই একজন আদর্শ উদাহরণ আছে, যেটা তুই। তোকেই যদি সবাই অনুসরণ করে, তাহলে আমাদের বেশি দূর ‍তাকাতে হবে না।’