চিলমারী নদী বন্দরে, নৌকাচালক ও কুলি শ্রমিকদের নিকট জিম্মি সাধারন মানুষ।

প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯

কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার চিলমারী নদী বন্দরে নৌকাচালক ও কুলি শ্রমিকদের নিকট জিম্মি সাধারণ মানুষ। চিলমারী নদী বন্দর থেকে রাজিবপুর ও রৌমারী এলাকার মানুষের চলাচলের একমাত্র পথ হচ্ছে এই নদী বন্দর।এই নদী বন্দর দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ পারাপার হয় এখানে দৈনিক চিলমারী-রাজিবপুর (২টি নৌকা),রাজিবপুর-চিলমারী(২টি নৌকা), চিলমারী-রৌমারী(৪টি নৌকা),রৌমারী-চিলমারী(৫টি নৌকা),চলাচল করে। এইসময় যাত্রীর কাছ থেকে মালামাল বাবদ অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে।

অতিরিক্ত ভাড়া দিতে বাধ্য থাকে সাধারণ যাত্রীরা। না হলে চরম হেনস্তার শিকার হতে হয় সাধারণ যাত্রীদের।একপর্যায়ে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে বাধ্য যাত্রীরা। ৪/৫জন সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গে আলাপকালে জানা যায় নিজে মালামাল বহন করলেও টাকা দিতে হয় আবার,না করলে তাদেরকে টাকা দিতে হয়। একজন যাত্রী অভিযোগ করে বলেন, ১০ কেজি মালামাল বহন করলে ভাড়া বাবদ কুলি শ্রমিক ও নৌকা চালকদের ৩০০/৪০০ টাকা প্রদান করতে হয়। যেহেতু নৌকাগুলো নির্দিষ্ট সময় চলাচল করে,কোন সময় নৌকা মিস করলে যাত্রীদের বাধ্যতামূলক নৌকা রিজার্ভ করতে হয়। ভাড়া ভাড়া বাবদ গুণতে হয় তিন থেকে চার হাজার টাকা।